সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

2015_07_02_10_58_05_oJu1rAK516f0JXxpOFx0fEQ1G0Wr8w_original.jpg

খুফুর পিরামিড রহস্য পিরামিডের অমিমাংসীত সৌন্দর্য

অদ্ভুত সুন্দরতার সাথে আছে ফাঁদ আর ভ্রান্ত গলি। মৃত্যু ফাদ যেখানে পদে পদে। ভয়ঙ্কর সৌন্দর্যের নাম যেন পিরামিড! বৃহত্তম পিরামিড সম্রাট খুফু'র পিরামিড ঠিক এমনি এক রহস্য।

প্রত্নতাত্বিকদের রহস্য উদ্ঘাটন যেখানে থেমে গিয়েছে তা খুব সম্ভবত মিশরের পিরামিড। এর অদ্ভুত নির্মাণসৈলী ও তাদের বিষ্বাস হার মানিয়েছে সকল রহস্য।

মিশরীয়রা মমি করে রাখত তাদের মৃত দেহ, মৃত্যুর পর মানুষ আবার জেগে ওঠার ধারণায়। সাথে রাখা হত তাদের আসবাব, খাবার থেকে শুরু করে পালিত পশু কিংবা দাস দাসীদের ও জীবন্ত মমি! ফারাও খুফুর সমাধি স্থান তথা পিরামিড সর্ব বৃহত্তম মমি যার পাশেই আছে ফারাও খাফরে ও মেনকাউরের পিরামিড।

খুফুর পিরামিডটি তৈরীতে ২০ বছর মত লেগেছিলো। কাজ শেষ হয়েছিলো ঠিক সম্রাটের মৃত্যুর ৩ বছর আগে। যেন মৃত্যুকে সে জেনে নিয়েছিলো! ঐ ত্রিকোণমিতিক হিসাব খুব জটিল। ঞুনের ১৫ তারিখ সম্রাটের জন্ম তারিখে দেখা যায় পিরামিডের শীর্ষে আদম সুরতের তিনটি তারা। আবার শীর্ষে দেখা যায় ধ্রুবতারা। একটু পাশে বৃশ্চিকের কেন্দ্র।

ফারাও যেন নিজের মত পরিচালনা করেছেন নিক্ষত্রদের। প্রায় ২ মিলিয়ন পাথর ব্যাবহার করা হয়েছিলো এই পিরামিড তৈরীতে, গড় ওজন হবে ২.৫ টন। ৪৮১ ফিট উচ্চতার এই স্থাপনা ঘুম কেড়ে নিচ্ছে এখনো বহু স্থাপত্য, প্রত্নতাত্বিক, ঐতিহাসিকের।

এতটাই মজবুত প্রাচীন এই স্থাপত্য কর্ম যা তিন হাজার বছর ধরে ১৬ টি মারাত্মক ভূমিকম্প উপেক্ষা করে দাড়িয়ে আছে। যেই স্ফিংস পাহাড়া দিচ্ছে পিরামিড তার উচ্চতা এতটাই বড় যা অভাবননীয় এবং এর অর্ধেকটা পশু, অর্ধেকটা মানুষ ...কিছুটা নর কিছুটা নারী।

ঐতটাই বিকৃত যে ধারণা করা হত ভিন গ্রহের কোন বাসিন্দারা এদের তৈরী করে গিয়েছেন! পিরামিডের বহির আর ভেতর সম্পূর্ন ভিন্ন। অদ্ভুত সুন্দরতার সাথে আছে ফাদ আর ভ্রান্ত গলি। মৃত্যু ফাদ যেখানে পদে পদে। ভয়ংকর সৌন্দর্যের নাম যেন পিরামিড!

তর্ক - বিতর্ক আর প্রচন্ড রহস্য নিয়ে আশা রাখা যায় কোন দিন, কোন একদিন হয়ত উন্মোচিত হবে রহস্য খুফুর এই পিরামিডের।তবে নির্মানশৈলী দেখে অন্তত বলা যাবে, ফারাও খুফুর স্থাপত্য। উনি মানুষ হিসেবেও ছিলেন জটিলতার প্রতিচ্ছবি, তাই হয়ত তার রহস্যময় স্থাপনা এখনো মেলে ধরেনি তার রহস্য প্রত্নতাত্বিক চিন্তা ও গবেষণায়। 
এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

পিরামিড, রহস্য, মমি, ভ্রান্ত-গলি, মৃত্যু, নক্ষত্র